পাবনা, ঈশ্বরদীর লিচু

 

লিচুতে যত উপকার ও যত পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

দেশজুড়েই লিচুর গাছ জন্মে। এ সময়টায় তাই বাজার ভরে যায় রাঙা লিচুতে। বিক্রেতার ঝুড়িভর্তি লিচু সন্ধ্যা মেলাতেই ফুরিয়ে আসে। রসাল আর মিষ্টি স্বাদের এই লিচু কী শুধু রসনা বিলাসের কাজই করে? নাকি পুষ্টিও পূরণ করে?
ঢাকার বারডেম জেনারেল হাসপাতালের জ্যেষ্ঠ পুষ্টি ও পথ্যবিদ শামছুন্নাহার নাহিদ জানালেন, লিচু দেখতে যেমন সুন্দর, এর পুষ্টিগুণও ষোলো আনা। বললেন, ‘খেতে সুস্বাদু দেখে একসঙ্গে আবার খুব বেশি খেয়ে ফেললে তার ফলটা কিন্তু ভালো না-ও হতে পারে! খাওয়াটা পরিমাণে বেশি হলে কারও কারও অ্যাসিডিটি আবার কখনো ডায়রিয়াও হতে পারে। আর যাঁদের ডায়াবেটিস আছে, তাঁরা লিচু হিসাব করে খাবেন। খেলে সর্বোচ্চ চারটি থেকে পাঁচটির মধ্যেই থাকুন। এ ছাড়া, আর কারও জন্য লিচুতে বিধিনিষেধ নেই।’
হিসাব করে দেখা গেছে, ১০০ গ্রাম লিচুতে শক্তির পরিমাণ ৬৬ কিলোক্যালরি, শর্করা ১৬.৫৩ গ্রাম, প্রোটিন ০.৮৩ গ্রাম, চর্বি ০.৪৪ গ্রাম, আঁশ ১.৩ গ্রাম। সেই সঙ্গে লিচু অসংখ্য ভিটামিন আর মিনারেলে সমৃদ্ধ।
পরিবেশদূষণের কারণে শরীরে বয়সের ছাপ পড়ছে দ্রুত৷ লিচু শরীরের তারুণ্য ধরে রাখার মোক্ষম অস্ত্র।
লিচুতে আছে ক্যানসার প্রতিরোধক্ষমতা। লিচু ক্যানসার কোষ বিভাজনকে বাধা দেয়।
উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে লিচুতে থাকা উপাদানগুলো। লিচু খেলে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ (স্ট্রোক) এবং হৃদ্রোগের ঝুঁকি কমে।
লিচু হজমশক্তি বাড়ায়। সেই সঙ্গে ক্ষুধাবর্ধক হিসেবেও কাজ করে।
সুস্থ হাড়ের জন্য লিচু অতি প্রয়োজনীয়। হাড়ের সমস্যায় যারা ভুগছেন তাদের জন্য ওষুধের বিকল্প এ ফলটি।
লিচু ত্বক ভালো রাখে। ব্রণ হতে বাধা দেয়। সেই সঙ্গে ত্বকের কালো দাগ দূর করারÿক্ষমতা আছে লিচুর।
লিচুতে থাকা ভিটামিন সি, নিয়াসিন, থায়ামিন চুলের সৌন্দর্য বাড়িয়ে চুলকে দিঘল কালো করে তোলে।
লিচুতে ক্যালরি বেশি থাকায় শরীরের কর্মক্ষমতাকে বাড়িয়ে দেয় বহুগুণে।
ক্যালরির পরিমাণ বেশি থাকে, তাই ডায়াবেটিসের রোগীদের পরিমিতভাবে লিচু খাওয়া উচিত৷
লিচুর জলীয় অংশ শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে।
লিচুতে থাকা ভিটামিন ‘সি’-এর পরিমাণ কমলালেবুর তুলনায় ঢের বেশি।
এ ছাড়া, গাজরের তুলনায়ও অনেকটা বেশি বিটা ক্যারোটিন থাকে লিচুতে।
মুখের স্বাস্থ্য এবং দাঁত ভালো রাখতে লিচুর আছে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা।
লিচুর ভিটামিন ‘এ’ রাতকানাসহ চোখের নানা রোগের প্রতিষেধকও।
এ রোদ-গরমের সময়ে ক্ষতিকর অতিবেগুনি রশ্মি থেকে শরীরকে রক্ষা করবে লিচু ।

ভেজাল ও পোকামুক্ত ঈশ্বরদীর কৃষকের লিচু।

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “পাবনা, ঈশ্বরদীর লিচু”

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shopping Cart